Skip to content

বিপদ থেকে মুক্তির ৪টি সহজ দোয়া

    আপনি এমন বিপদে আছেন যে বিপদ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কোন পথ খুলা দেখতে পারছেন না। এক কথায় দেয়ালে পিঠ টেঁকে গেছে, এরকম পরিস্তিতিতে একজন ইমানদার আল্লাহর কাছে তার এই সমস্যা কে তুলে ধরবার জন্য কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ আমল রয়েছে। যে আমল গুলোর মাধ্যমে ঐ অসম্ববকে তার জন্য সম্ভব করবেন ইনশাআল্লাহ। 

    আরও পড়ুনঃ নারীদের জান্নাত লাভের ১১ টি সহজ আমল

    যেখানে মনে হবে এই সমস্যা সমাধান যোগ্যই না আল্লাহ তায়ালা সেটাকে অলৌকিক ভাবে সমাধান করেছেন। এই রকম ৪টি আমল আছে যেগুলো পড়লে আপনার যেকোন ধরণের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন ইনশাআল্লাহ, তবে অবশ্যই পুরপুরি একিনের সাথে দোয়া গুলো পরতে হবে।

    বিপদ থেকে মুক্তির ৪টি সহজ দোয়া

    ইস্তেগফার

    ইস্তেগফার সম্পর্কে নবি করিম (সাঃ) বলেনঃ যে ব্যাক্তি ইস্তেগফারকে আঁকরে ধরবে এবং পড়তেই থাকবে তাঁকে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সকল প্রকার চিন্তা, টেনশন থেকে মুক্তির পথ দেখাবেন। যে সমস্যাটি সমাধানের কোন সম্ভবনা নেই আল্লাহ তায়ালা সেই সকল সমস্যার সমাধানও ইস্তেগফার পড়ার কারণে অলৌকিক সমাধান দিয়ে থাকেন। 

    তবে আপনি যদি ইস্তেগফার পড়ার কারণেও বিপদ-আপদ থেকে মুক্তি না পান বা টেনশন থেকে মুক্তি না পান তাহলে বুজতে হবে হয়তো আপনার ইস্তেগফার পাঠ করার মধ্যে কোন ত্রুটি ছিল অথবা আপনার উপরে যেই বিপদটি এসেছে সেটাই আপনার জন্য কল্যাণ কর। 

    আরও পড়ুনঃ আল্লাহ আপনাকে কতটুক ভালোবাসেন? বিস্তারিত…

    দুরুদ

    রাসুল (সাঃ) এর উপর দুরুদ পাঠ করুন, মোহাব্বতের সাথে নবি করিম সাঃ এর দুরুদ পাঠ করুন, ছোট বড় যেকোন দুরুদ পাঠ করতে পারেন, অন্যান্য দুরুদ জানা না থাকলে নামাজে যেই দুরুদ শরিফ পাঠ করা হয় সেটা পাঠ করতে পারেন। এভাবে আপনি যেকোন দুরুদ পড়তে পারেন। 

    এক্ষেত্রে নবি করিম (সাঃ) বলেনঃ এটা তোমার জন্য যথেষ্ট হয়ে যাবে তুমি যদি এটা ছাড়া আর কোন দোয়া না পড়তে পার তাহলেও তুমি সব পেয়ে যাবে, এক সাহাবী রাসুল সাঃ কে প্রশ্ন করেন হে রাসুল আমি যখন দোয়া করব তখন আপনার জন্য কতভাগ দোয়া করব ২৫%,৫০%,৭৫%, নাকি ১০০%, তখন নবি করিম সাঃ বলেন তুমি যদি সব দোয়াই আমার জন্য করতে পার তাহলে তোমার আর কোন দোয়া করার প্রয়োজন নেই। এর মাধ্যমে বুঝা গেল দুরুদের পাঠ করলে স্বয়ংক্রিয় ভাবে আল্লাহ আপনাকে সাহায্য করবেন এবং সকল বিপদ-আপদ, দুশ্চিন্তা, এবং পেরেশানি থেকে মুক্তি দিবেন, ইনশাআল্লাহ। 

    আরও পড়ুনঃ যাদের আমল আল্লাহ কবুল করেন না

    দোয়ায়ে ইউনুস

    যখননি কোন বিপদে পরবেন তখন দোয়ায়ে ইউনুস পড়তে থাকবেন, তবে ইস্তিগফার এবং দুরুদ নিশ্চয়ই বেশি পড়বেন এবং মাঝে মধ্যে দোয়ায়ে ইউনুস পড়বেন। হযরত ইউনুস (আঃ) যখন মাছের পেটে চলে যান তখন তিনি এই দোয়াটি পড়তে থাকেন এবং তারপরেই আল্লাহ থাকে অলৌকিক ভাবে মাছের পেট থেকে জীবিত অবস্থায় স্থলে ফিরিয়ে দেন, সুবহানাল্লাহ। 

    আল্লাহ বলেন এই দোয়ার মাধ্যমে আমি ইউনুস আঃ কে মাছের পেট থেকে বাঁচিয়ে জীবিত অবস্থায় ফিরিয়ে দিয়েছি ঠিক একইভাবে ইমানদার ব্যাক্তিদেরও এই দোয়ার মাধ্যমে বিপদ-আপদ থেকে মুক্তি দান করব। মুসলমানদের বিপদ আপদ থেকে মুক্তির জন্য দোয়া ইউনুস একটি বড় অস্র। 

    বিশেষ দোয়া

    বিপদ থেকে মুক্তির জন্য এই বিশেষ দোয়াটি নিয়মিত পড়ুন, দোয়াটি হলোঃ ইয়া যাল জ্বালালি ওয়াল ইকরাম। নবি করিম সাঃ এই দোয়ার ব্যাপারেও বলেছেন এই দোয়াকে তোমরা আঁকরে ধরবে। 

    উপসংহার

    এই দোয়া গুলোর পাশাপাশি বিপদ-আপদ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য তাহাজ্জুতের নামাজ আদায় করুন। নবি সাঃ এর কোন পেরেশানি বা বিপদ আসলে তিনি আগে দুই রাকাত নফল নামাজ পড়তেন। এই আমল গুলো আকিনের সাথে করুন নিশ্চয়ই আল্লাহ বিপদ-আপদ থেকে মুক্তি দিবেন বা বিপদ মুক্তি পথ দেখিয়ে দিবেন। 

    x