Skip to content

ভাগ্য পরিবর্তনের ৩টি সহজ আমল

    কি করলে আমাদের ভাগ্যে ভালো কিছু আল্লাহ তায়ালা নির্ধারণ করবেন, কীভাবে আমরা সুভাগ্যের অধিকারী হব, আল্লাহ তায়ালা আগেই আমাদের ভাগ্য নির্ধারণ করে রেখেছেন। এখন আমাদের কিছু করার আছে কি না, যেটা করলে আমার ভাগ্যে ভালো কিছু হবে। 

    আরও পড়ুনঃ বিপদ মুক্তির ৪টি দোয়া

    হ্যাঁ তিনটি আমল রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আমরা সুভাগ্যবান হতে পারি, আমাদের নসীবে ভালো কিছু হতে পারে। ভাগ্য পরিবর্তন করার অনেক আমল রয়েছে তবে আমরা শুধু গুরুত্বপূর্ণ তিনটি আমল তুলে ধরছি। 

    ভাগ্য পরিবর্তনের ৩টি সহজ আমল

    আল্লাহর দাসত্ব 

    আল্লাহ কুরআনে বলেনঃ জনপ্রদের লোকেরা যদি ইমান আনে এবং তাকওয়া অবলম্বন করে তাহলে তার জন্য আমি বরকতের সকল দরজা খুলে দেব। 

    বিস্তারিতঃ আল্লাহর প্রতি ইমান আনতে হবে এবং তার আনুগত্য করতে হবে, আল্লাহর আদেশ নিশেদ গুলোকে মেনে চলতে হবে, আল্লাহ আমার রব যিনি আমাকে সৃষ্টি করেছেন এবং তার কাছেই আমাকে ফীরে যেতে হবে অতএব সে জন্যই তার নির্দেশের বাহীরে চলা যাবেনা। তার নিষেধাজ্ঞাকে লঙ্গন করবনা, এর মধ্যেই আমার জীবনের প্রত্যেকটা কল্যাণ নিহিত। সেই রবের দাসত্ব এবং আনুগত্য আমরা যদি পরিপূর্ণ ভাবে করতে পারি, নিজেকে যদি স্বমর্পন করে দিতে পারি আল্লাহর কাছে তাহলে নিশ্চয়ই আমাদের ভাগ্যের উন্নতি হবে। 

    অনেকে মনে করি অনেক টাকা পয়সার মালিক হয়ে গেলে বা সম্পত্তি হয়ে গেলে আমার ভাগ্য ভালো, আর যদি জমা হয়নি ব্যাংকে টাকা জমা নেই, অনেক গুলো জমি নেই তাহলে আমার ভাগ্য ভালোনা, ভাগ্য ভালো এবং মন্দকে যারা এই ভাবে সংজ্ঞায়িত করেন তারা স্পষ্ট ভুলের মধ্যে আছেন। 

    আরও পড়ুনঃ নারীদের জান্নাত পাওয়ার ১১টি আমল

    অনেক মানুষের ধন সম্পদ অনেক বেশি তাকার পরেও তারা শান্তিতে নাই, সবসময় দুশ্চিন্তা, পেরেশানিতে থাকেন। আবার যেই লোক দিন আনে দিন খায় সে লোক খুব সুখে রয়েছে। কোন দুশ্চিন্তা বা পেরেশানি নেই। অনেক সুখে শান্তিতে আছে। আল্লাহ আমাদের প্রকৃত সুখ বুঝার তাওফিক দান করুন। 

    আত্মীয়তার বন্ধন রক্ষা করা

    ভাগ্য ভালো হওয়ার জন্য আমাদের আত্মীয়তার বন্ধন রক্ষা করতে হবে, আত্মীয়তার বন্ধন যে যত বেশি সংযুক্ত রাখবে আল্লাহ তায়ালা তার হায়াত এবং রিজিকে তত বেশি বরকত দান করবেন। নবি করিম (সাঃ) বলেনঃ যে চায় তার রিজিকে বরকত হোক, হায়াত বৃদ্ধি পাক সে যেন তার রক্তের সম্পর্কের আত্মীয়দের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখে। 

    রক্তের সম্পর্কের আত্মীয়দের সাথে সুসম্পর্ক রাখা ফরজ। আল্লাহ নির্দেশ করেছেন তোমরা আত্মীয়তার বন্ধন সংযুক্ত রাখ। যে আত্মীয়তার বন্ধন রক্ষা করে আল্লাহ থাকে রক্ষা করেন, এবং যে আত্মীয়তার বন্ধন ছিন্ন করে আল্লাহ থাকে ছিন্ন করেন।  

    আরও পড়ুনঃ কীভাবে বুঝবেন আল্লাহ আপনাকে ভালোবাসেন

    তবে আপনার আত্মীয়তার বন্ধন ঠিক রাখলে যদি আপনার ক্ষতিই বেশি হয় তাহলে আপনি সেটা ছিন্ন করতে পারেন, এমন অনেক আত্মীয় আমাদের রয়েছে যারা আমাদের ভালো দেখতে পারেনা, পরিবারে অশান্তি সৃষ্টি করতে চায়, ক্ষতি করতে চায় সেই আত্মীয়দের থেকে দূরে থাকতে পারেন, এতে আপানার কোন ক্ষতি হবেনা। 

    দোয়া

    দোয়া ইমানদারের সবচেয়ে বড় অস্র, আল্লাহ বলেনঃ তোমরা আমার কাছে দোয়া কর আমি তোমাদের দোয়া কবুল করব। নবি করীম সাঃ বলেন তোমরা ছোট ছোট কারণেও আল্লাহর কাছে দোয়া চাও, এমনকি তোমার জুতার ফিতা ছিরে গেলে যেটা তুমি সহজেই ঠিক করতে পারবে, তার পরও তুমি আল্লাহর কাছে দোয়া চাউ। 

    আমাদের রাসুল সাঃ উনার পুর জীবনের সকল কাজে সর্ব অবস্তায় দোয়া করতেন। রাসুল সাঃ বলেনঃ আল্লাহ কিছু নির্ধারণ করলে সেটা পরিবর্তন করেন না, কিন্তু আল্লাহ তার নির্ধারণকে পর্যন্ত পরিবর্তন করে দেন দোয়ার কারণে। আল্লাহর কাছে সব সময় দোয়া করতে থাকব – আল্লাহ আমার ভাগ্যে ক্ষতিকর কিছু থাকলে সেটা থেকে পানাহ চাই। 

    দোয়ার মাধ্যমে আমরা ভাগ্য পরিবর্তন করে পারি, দোয়া যে কোন সময় করা যেতে পারে। সহজ আমল গুলোর মধ্যে দোয়া অন্যতম, এটি খুবি সহজ একটি এমন যেটি করতে ওযু, গোসল কিছুর দরকার হয়না। তাই আমলটি করার চেষ্টা করুন, এটির মাধ্যমে আল্লাহ আপনার ভাগ্য পরিবর্তন করে দিতে পারেন। 

    তবে দোয়া যদি তাহাজ্জুদের নামাজ পরে করতে পারেন তাহলে আপনি নিশ্চয়ই উত্তম প্রতিদান পাবেন।  

    উপসংহার

    ভাগ্য পরিবর্তন করার জন্য এই তিনটি আমল খুবি কার্যকর, তবে মনে রাখবেন ভাগ্য পরিবর্তন বলতে শুধু টাকা-পয়সা, দন সম্পত্তির মালিক হওয়াকে বুঝবেন না। আল্লাহ চান আমরা উনার কাছে দোয়া করি, তিনি আমাদের দিতে চান কিন্তু আমাদের চাওয়ার গাফলতির কারণে আমরা তা থেকে বঞ্চিত হই। আল্লাহ আমাদের সবার জীবন উত্তম রিজিকে বরপুর করে দিন। 

    x