Skip to content

ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন বিস্তারিত | পার্সোনাল লোন

    ডাচ বাংলা ব্যাংক ৩ ধরনের রিটেইল লোন দিয়ে থাকে এর মধ্যে রয়েছে হোম লোন, পার্সোনাল লোন এবং কার লোনডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সর্বনিম্ন ২০ লক্ষ্য টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্ছ ২ কোঁটি টাকা পর্যন্ত লোন দিয়ে থাকে। 

    আরও পড়ুনঃ জরুরী লোন বাংলাদেশ

    আপনার যদি একটি স্বপ্ন থাকে নিজের একটা বাড়ি বানানোর বা একটা গাড়ি কিনার তাহলে ডাচ বাংলা ব্যাংক আপনার স্বপ্ন পূরণ করতে সাহায্য করবে। এছাড়াও আপনার পার্সোনাল প্রয়োজনে সর্বোচ্ছ ২০ লক্ষ্য টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারবেন, পার্সোনাল প্রয়োজন যেমন – পড়াশোনা, চিকিংসা, ভ্রমন, আসবাবপত্র ক্রয় এবং এই রকম আরও অনেক খ্যাঁতে ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নিতে পারবেন। 

    আরও পড়ুনঃ প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন নিতে আপনার কি কি যোগ্যতা থাকা লাগবে? কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে? ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সুদের হাঁর কত শতাংশ? এবং সুবিদা অসুবিদা কি কি সব জানতে পারবেন এই পোষ্ট থেকে। 

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন পেতে যোগ্যতা ও ডকুমেন্ট

    ডাচ বাংলা ব্যাংক বেশ কিছু শ্রেণী পেশার মানুশদের তাদের রিটেইল লোন প্রধান করে থাকে, যেমন – চাকুরীজীবী, ব্যবসা, বাড়ি বাড়া কৃতক আয়, ডাক্তার, প্রকৌশলী, অ্যাকাউন্টেন্ট, শিক্ষক, কৃষক এবং আরও অন্যান্য আরও বৈধ পেশাজীবীর মানুষকেও রিটেইল লোন প্রধান করা হয়। 

    আরও পড়ুনঃ আশা এনজিও লোন পদ্ধতি

    তবে রেটাইল লোন পাওয়ার মত গ্রহণযোগ্য মাসিক আয় থাকতে হবে। আপনার মাসিক আয় যদি ৩০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা হয় তাহলে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে যেকোন লোন নিতে পারবেন। 

    প্রয়োজনীয় কাগজপত্রঃ

    • ভোটার আইডি কার্ডের কপি, 
    • সদ্য তুলা আপনার ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি, 
    • আপনার ব্যক্তিগত যেকোন ব্যাংকের শেষ ৬ মাসের স্টেটমেন্ট, 
    • আপনার বাসার বিদ্যুৎ বিলের একটি অরিজিনাল কপি,
    • আপনার আয় এবং পেশার প্রমান করতে ডকুমেন্ট, 
    • আপনি যদি চাকরিজীবী হন তাহলে অফিসের পরিচয়পত্র এবং পে স্লিপ/বেতন রশিদ দরকার হবে, 
    • আপনি যদি পেশাজীবী হন তাহলে সংশ্লিষ্ট ডিগ্রির সনদ প্রয়োজন হবে, 
    • আপনার আয় যদি বাড়ি ভাড়ার মাধ্যমে হয় তাহলে বাড়ির মালিকানা দলিলপত্র, ভাড়া প্রাপ্তির রশিদ অথবা ভাড়াটিয়ার সাথে চুক্তিপত্রের কপি, 
    • আপনি যদি ব্যবসায়ী হন তাহলে ব্যবসার ট্রেড লাইসেন্স দরকার হবে, 
    • আপনার পার্সোনাল গ্যারান্টি, 
    • আয়কর প্রধানের রশিদ দিতে হবে, 
    • কার লোনের ক্ষেত্রে গ্রাহক কৃতক গাড়ির কোটেশন প্রয়োজন হবে,
    • অন্যান্য আরও কাগজপত্র এবং জামানত লাগতে পারে (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে),

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন নিতে চাইলে আপনার এই সকল যোগ্যতা থাকতে হবে এবং কাগজপত্র প্রয়োজন হবে। তবে এর বাহিরে আরও বেশ কিছু ডকুমেন্ট লাগতে পারে। 

    আরও পড়ুনঃ কৃষি ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার নিয়ম

    ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন বৈশিষ্ট্য ও বিস্তারিত

    ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন নিয়ে আপনি নতুন অথবা পুরাতন বাড়ি বা ফ্ল্যাট ক্রয় করতে পারবেন, পুরাতন বাড়ি পুনঃনির্মাণ করতে পারবেন। হোম লোনের জন্য আপনি মোট বায়ের ৭০ শতাংশ পর্যন্ত লোন পাবেন, যেমন – আপনার নতুন পুরাতন বাড়ি ক্রয় বা নির্মাণ করতে যদি এক কোঁটি টাকা প্রয়োজন হয় তাহলে ডাচ বাংলা ব্যাংক তার ৭০ শতাংশ অর্থাৎ ৭০ লক্ষ্য টাকার লোন আপনাকে প্রধান করবে। 

    • ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোনের জন্য সর্বোচ্ছ দুই কোঁটি টাকা প্রধান করা হয়, 
    • সর্বনিম্ন ১২ মাস থেকে সর্বোচ্ছ ২৫ বছরের মধ্যে হোম লোন পরিশোদ করতে হয়,
    • সর্বনিম্ন ১৮ বছর থেকে সর্বোচ্ছ ৭০ বছরের বিদ্র পর্যন্ত এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন, 
    • ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন প্রসেসিং ফী ০.৫০ শতাংশ, তবে সর্বোচ্ছ ১৫ হাজার টাকা, 
    • হোম লোন পাওয়ার জন্য আপনার মাসিক আয় সর্বনিম্ন ৩০ হাজার টাকা হতে হবে, 
    • হোম লোনের কিস্তি মাসিক ভিত্তিতে দিতে হয়, 

    ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন বৈশিষ্ট্য ও বিস্তারিত

    ডাচ বাংলা পার্সোনাল নেওয়ার জন্য আপনার মাসিক বেতন ৩০ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা হতে হবে, আপনি যদি সরকারি চাকরি করেন তাহলে ৩০ হাজার টাকা বেতন হতে হবে, এছাড়া নিজের বিজনেস প্রতিমাসে আয় ৫০ হাজার টাকা হতে হবে, এবং বাড়ির মালিক হলে ৩০ হাজার টাকা আয় হতে হবে। 

    • ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন সর্বনিম্ন ৫০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্ছ ২০ লক্ষ্য পর্যন্ত দেওয়া হয়, 
    • পার্সোনাল লোন ১২ মাস থেকে ৬০ মাসের মধ্যে পরিশোদ করতে হয়, 
    • আপনার বয়স ১৮ বা তার বেশি হলে লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং ৭০ বছরের বেশি হলে আবেদন করতে পারবেন না, 
    • পার্সোনাল লোনের ক্ষেত্রেও প্রসেসিং ফী ০.৫০ শতাংশ (সর্বোচ্ছ)
    • আপনি যদি বেসরকারি চাকরি করেন তাহলে চাকরির বয়স সর্বনিম্ন ১ বছর হতে হবে, সরকারি চাকরিজীবী হলে ৬ মাস হতে হবে, এবং নিজের বিজনেস হলে সেটার বয়স ২ বছর হতে হবে, 
    • পার্সোনাল লোন মাসিক কিস্তিতে পরিশোদ করতে হয়, 

    ডাচ বাংলা ব্যাংক কার লোন বৈশিষ্ট্য ও বিস্তারিত

    ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে কার লোন নিয়ে আপনি শুধু মাত্র নিজের পার্সোনাল ব্যাবহারের জন্য গাড়ি ক্রয় করতে পারবেন, এই লোন নিয়ে আপনি কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য গাড়ি বা যেকোন ধরনের যানবাহন ক্রয় করতে পারবেন না। 

    • ডাচ বাংলা ব্যাংক কার লোনের জন্য এক লক্ষ্য টাকা থেকে সর্বোচ্ছ ৪০ লক্ষ্য টাকা পর্যন্ত ঋণ সুবিদা প্রধান করে থাকে, 
    • কার লোন ৬০ মাসের মধ্যে পরিশোদ করতে হয়, 
    • ১৮ বছর থেকে ৭০ বছর বয়সি নারি-পুরুষ কার লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন, 
    • কার লোন প্রসেসিং ফী ০.৫ শতাংশ, 
    • কার লোন নিতে হলে আপনার মাসিক আয় ২৫ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা হতে হবে, 
    • চাকরির বয়স ৬ মাস থেকে ২ বছর পর্যন্ত হতে হবে, এটা চাকরি বেদে কম-বেশি হবে, 
    • কার লোনের কিস্তিও প্রতি মাসে দিতে হয়। 

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন এর সুবিদা

    ডাচ বাংলা ব্যাংক দেশের গ্রাম অঞ্চলেও তাদের শাখা বিস্তার করে রেখেছে, তাই আপনি চাইলে দেশের যেকোন শাখা থেকে ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন নিতে পারবেন। 

    ডাচ বাংলা ব্যাংকের যেকোন শাঁখা থেকে ঋণ গ্রহন করতে পারবেন এবং কিস্তি পরিশোদ করতে পারবেন। 

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন এর জন্য তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন গ্রহন করলে কিস্তি চলাকালীন সময়ের মধ্যে যেকোন সময় সম্পূর্ণ বা আংশিক ঋণ পরিশোদ করতে পারবেন। 

    আপনার মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে ঋণের সকল তথ্য প্রতিনিয়ত প্রধান করা হবে। 

    যেকোন সমস্যায় রাত-দিন ২৪ ঘণ্টা কল করে সমস্যার সমাধান করতে পারবেন (নাম্বার ১৬২১৬)

    উপসংহার

    ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন এর তিনটি রিটেইল লোন নিয়ে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করেছি, তবে সকল তথ্য প্রধান করতে পারেলও লোনের সুদের হাঁর কত শতাংশ তা জানা জায়নি। লোনের সুদের হাঁর জানার জন্য আপনার নিকটস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংক শাঁখায় যোগাযোগ করুন। 

    পরিশেষে বলতে চাই, লোন দেওয়া-নেওয়া হারাম। তাই এই লোন থেকে দূরে থাকুন। দুনিয়ার জীবন থেকে আখুরাতের জীবন খুবি সুন্দর এবং অনন্তকালের। দুই দিনের এই দুনিয়ার জন্য অনন্তকালের জীবন নষ্ট করবেন না। আল্লাহ সকল মুসলমানকে দিনের বুজ দান করুন ও হেদায়েত দান করুন।

    x