Skip to content

প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ কিভাবে নিবেন জানুন বিস্তারিত

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ এমন একটি লোন যা শুধু মাত্র শিক্ষিত এবং ট্রেনিং প্রাপ্ত যোগ্য যুবকদের এবং বেকারদের করা হয়। এই লোন প্রধানের মূল উদ্দেশ্য হলো বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান তৈরি করা এবং যুবকেরা যাতে ব্যবসা বা কামার পরিচালনা করার মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয় বেকারত্তের হাঁর কমাতে পারে এটাই মূল লক্ষ্য। 

    আরও পড়ুনঃ আশা এনজিও লোন পদ্ধতি

    আজকের এই পোষ্টে প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ সম্পর্কে বিস্তাতির সকল তথ্য জানতে পারবেন, 

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ 

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশের দুটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প হলো ব্যবসা ঋণ এবং উৎপাদন কামার, এই দুটি প্রকল্প বিশেষ করে ঋণ প্রধান করা হয়। নতুন ব্যবসা বা পুরাতন ব্যবসা পসারিত করার জন্যও লোন প্রধান করা হয়। 

    আরও পড়ুনঃ কৃষি ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার সহজ উপায়

    এমনকি উৎপাদন যোগ্য যেকোন ধরনের বৈধ কামার করতে এবং পুরাতন কামার আরও বড় আকারে বিদ্দি করতে চাইলে এই লোন পাওয়া যায় সহজেই। 

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ প্রাপ্তির যোগ্যতা

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ 

    চলুন প্রথমেই জেনে নেই প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ প্রকল্পের ঋণ পেতে কি কি যোগ্যতা থাকতে হবে। 

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ পেতে নিম্ন লিখিত যোগ্যতা সমূহ আপনার থাকতে হবেঃ 

    • আপনাকে অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক হওয়া লাগবে, 
    • আপনাকে স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে, 
    • প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই বেকার হতে হবে, এই লোন প্রধান করার ক্ষেত্রে বেকারদের প্রাধান্য দেওয়া হবে, 
    • আপনাকে অবশ্যই যুবক হতে হবে, সর্বনিম্ন ১৮ বছর থেকে সর্বোচ্ছ ৩৪ বছর বয়স হতে হবে,
    • একটি ব্যবসা প্রতিষ্টান বা কামার পরিচালনা করার যোগ্যতা থাকতে হবে, অর্থাৎ আপনি যেই কাজের জন্য লোন নিতে চান সেই কাজে আপনাকে একজন যোগ্য ব্যক্তি হতে হবে,
    • আপনি যদি এর আগে অন্য কোন ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়ার পর সেটা ঠিক মত পরিশোদ না করে থাকেন তাহলে আপনাকে এই লোন প্রধান করা হবেনা,  
    • লোন পাওয়ার জন্য আপনার একজন নমিনি বা গ্যাঁড়ান্টার প্রয়োজন হবে, যার লোন পরিশোদ করার মত সম্পত্তি রয়েছে, 

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ এর বৈশিষ্ট্য

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ এর কিছু অসাধারণ বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যেমনঃ 

    • প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ এর সুদ মাত্র ৯ শতাংশ, 
    • এই ঋণ প্রকল্প আপনাকে সর্বোচ্ছ ৫ লক্ষ্য টাকা ঋণ প্রধান করবে, 
    • এই লোন নির্দিষ্ট কোন খ্যাঁতের জন্য দেওয়া হয়না, তাই এটি গ্রহন করার পর আপনি যেকোন উৎপাদন খ্যাঁতে বা বৈধ ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে পারবেন, 
    • এই ঋণ টি পেতে হলে অবশ্যই অবশ্যই উক্ত কাজে আপনাকে যোগ্য হতে হবে, 

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ পেতে ডকুমেন্ট

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ 
    • দলিল সহ জমির অন্যান্য সকল কাগজপত্র,
    • আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, 
    • আবেদনকারীর নতুন তুলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের কালারিং ছবি, 
    • নমিনির নতুন তুলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, 
    • আবেদনকারীর হালনাগাদ পি,এফ সংক্রান্ত কপি, 

    প্রধানমন্ত্রী লোনএর জন্য আবেদন

    প্রধানমন্ত্রী লোনের জন্য আবেদন করতে এখান থেকে ক্লিক করে সরকারি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন তারপর সেখান থেকে আপনার ক্ষাঙ্কিত লোনের জন্য আবেদন করুন। 

    উপসংহার

    প্রধানমন্ত্রী লোন বাংলাদেশ সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করেছি, আশা করছি আমাদের এই পোষ্ট থেকে আপনার ক্ষাঙ্কিত তথ্য জানতে পেরেছেন। 

    পরিশেষে বলতে চাই, লোন দেওয়া এবং নেওয়া হারাম তাই লোন বর্জন করুন, এবং অখিরাতের পত সহজ করুন।

    x